চাচাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প 2022

আজকের আলোচনার বিষয় হচ্ছে চাচাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প বাংলা রোমান্টিক প্রেমের গল্প ছোট কাহিনী 2021 । এই রোমান্টিক ভালোবাসার ছোট গল্পতে আপনারা জানতে পারবেন যে চাচাতো বোন কিভাবে আমাকে বিয়ে করলো । তার পর ছলনা করে বিয়ে তো বন্ধুরা আমাদের chhota golpo ওয়েবসাইডে আপনাদেরকে স্বাগতম । দেখতে থাকুন এই চাচাতো বোনের সাথে বিয়ে নাটক টি আর অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

চাচাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

চাচাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প,চাচাতো বোন যখন বউ,চাচাতো বোন যখন হবু বউ,চাচাতো বোন ,চাচাতো বোন যখন গ্রামের বউ, চাচাতো বোন যখন গ্রামের বউ নাটক,চাচাতো বোনের সাথে বিয়ে নাটক,
চাচাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

আমি একটা স্টেজে মেয়ের সাথে ডান্স করছি হিন্দি একটা রোমান্টিক গান । মেয়েটি যেন আমার গায়ে ঢলে ঢলে পড়ছে ‌। আমি এত ঘেসাঘেসি পছন্দ করি না বাট এই মেয়েকে বোঝাবো কি করে পুরো এক কলেজের মানুষ দেখছে কিছু বলতেও পারছি না তাকে । আমি জানতাম যে এই মেয়ে কলেজের সবচেয়ে ভদ্র মেয়ে তাই এর সাথে ডান্স করতে আমি রাজি হয়েছিলাম । কিন্তু এখন দেখি এই মেয়ে তার তলে তলে বজ্জাতের ওস্তাদ ।

বাংলা সিনেমায় যেমন বলেনা ভিলেনের বাবা মা বলে যে 😈 শয়তান কুত্তার বাচ্চা তোকে বিনাশ করতে একদিন কেউ আসবে । আমিও সেই রকম বলছিলাম মনে মনে দেশটা শেষ হলো আমি ভগবানের নাম নিয়ে নিঃশ্বাস ফেললাম । তখনই স্টেটে পিছন থেকে খসখস শব্দ আসতে লাগল যেন কেউ কাউকে গণ ধোলাই দিচ্ছে ।

স্টেজের পিছনে যেতে দেখলাম আমার চাচাতো বোন মানে ঝিলিক আপু ওই লুচ্চা মেয়েকে মানে রিমিকে ধুম ধারাক্কা মার দিচ্ছে । যেন আমাকে ওর রক্তে দিয়ে হোলি খেলা বে হিন্দুদের দেবী কালীর রূপ ধারণ করেছে । সে আমি ঝিলিক আপুকে পিছন থেকে ধরে সাইডে নিয়ে গেলাম আমাকে একটা ধাক্কা মেরে ফেলে দিল এবং আবার তাকে মারতে লাগল এভাবে মারতে থাকলে তো মেয়েটা মরে যাবে কেউ বুঝাও ওকে ।
আপু না আমার ভালো চাচাতো বোন ওকে ছেড়ে দাও প্লিজ এভাবে মারতে থাকলে ও তো মরে যাবে ।
মুড়ক না মরলে শয়তানি কমবে একটা ওর কত্ত বড় সাহস ও আমার চাচাতো ভাইয়ের গায়ে হাত দিয়ে মেরে সব নোংরামি বের করে দেব ওর আজকে ।

ঝিলিক আপু থাম একটু প্লিজ আমার দোহায় লাগে তুমি থেমে যাও ।‌
ও ভালো ভালো এখনো ওর জন্য এত দরদ উথলে পড়ছে তো তাই না তুই একটা পচা ছেলে যা তোর সাথে আমি কোন কথা বলবো না আর ।
কথা নেই এটা বলতে পারলে আমার সাথে কথা না বললে কার সাথে কথা বলবে শুনি ।
এই দুনিয়ায় মানুষজনের অভাব আছে নাকি একটা ডাক দিলে পুরো কলেজ চলে আসবে হ্যাঁ বুঝেছিস।

ওই মেয়েটা কে এভাবে মারতে গেলে কেন এখন যদি বাসায় গিয়ে বিচার চাই আমাকে তোমাকে দুজনেই ডাব্লিউডাব্লিউই স্টাইল আমার আব্বু আর চাচা ।
এহে হে এম এ বিচার দিবে ? বিচার ও বিচার দিলে আমি রেপ কেস করবো…. রেপ কেস !
কি বললে তুমি !!! রেপ? কার রেপ কখন কোথায় কবে ?
তোর ই রেপ । আমি বলব যে আমার চাচাতো ভাইকে ওই মেয়ে রেপ করে গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড বুকে নিজের নাম লেখাতে চেয়েছিল তাই ওকে মেরেছি ?

চাচাতো বোন যখন বউ

তুমি পারোও বটে বাপু মজা করতে ? আচ্ছা চলো এখন বাসায় যাওয়া যাক ।
হুম চল আর সাবধানে মেয়েদের থেকে দূরে দূরে থাকবি এখনকার মেয়েদের মতিগতি ভালো না ।
এখন তো তোমার থেকেও তাহলে দূরে দূরে থাকতে হবে তাইনা !
তুই আমার থেকে দূরে থাকতে যাবি কেন আমি কী তোর বর নাকি আর আমি কি অন্য মেয়েদের মতো না কি আমি না তোকে কত ভালোবাসি ?
জানি জানি তুমি আমাকে কতটা ভালোবাসো ? তোমার ভালোবাসা সম্পর্কে সব মুলা পাম ।
(এই বলতে বলতে রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলাম হঠাৎ বৃষ্টি শুরু হল )

এই বৃষ্টিটাকে কি এখনি আসতে হল আর আসার কোন সময় পেল না বল ।
চলো ঐ গাছের নিচে এখন দাঁড়ানো যাক নইলে আমরা ভিজে যাব ?
হুম গাছের নিচে দারাই ভেজা অবস্থায় দেখলে আম্মু মেরে শুটকি বানিয়ে দেবে আমাকে?
আমরা তখন গাছের নিচে গেলাম গাছের নিচে যেতেই একটা মেয়েকে গাছের সাথে হেলান দেয়া অবস্থায় আবিষ্কার করলাম ।
কিরে এই মেয়ে কে কি ভূতে টুরে ধরেছে নাকি এভাবে গাছের নিচে বসে আছে কেন বৃষ্টিতে ?
কি জানি বুঝলাম নাতো ব্যাপারটা শরীর খারাপ হবে হয়তো মেয়েটার ।

এই মেয়ে এই মেয়ে এখানে কি করছো বাড়ি কোথায় তোমার ?
আপু মেয়েটা বোধহয় সান্তনু পরিবারেই মেয়ে হবে হয়তো ? দেখছোনা ব্যাগ আর মোবাইলটা হাতে ?
হুম বাট এখানে কেন অসুস্থ নাকি এরে এর তো গা পুড়ে যাচ্ছে জ্বরে ।
এখন কি করা যায় কোন গাড়ি ঘোড়া ও তো নেই এই রাস্তাতে ।
তুই এক কাজ কর ফোনটা তো কোনো রিলেটিভ এর ফোন নাম্বার আছে কিনা ?

ওর ফোনে তো চার্জ নেই ফোন তো একেবারে বন্ধ হয়ে গেছে । আচ্ছা একটা কাজ করি তুই এই নে ব্যাগটা আর ফোনটা ধরো তুমি এই বলে আমি মেয়েটাকে কোলে তুলে নিলাম মেয়েটা অজ্ঞান এই অবস্থায় ওখানে পড়ে থাকলে মারাও যেতে পারে ।
কিরে এই মেয়েকে কোলে তুলে নিলি কেন তুই ?
এই মেয়েকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে তো আর হাসপাতালে নিয়ে যেতে হলে তো কোলে নিতেই হবে না ও তুমি নাও ।


আমি আমার এই চিকন মার্কা শরিলে মেয়ে কোলে নিতে পারবো নাকি তুই নে সাবধানে গা-ঘেঁষা বিনা তার সাথে ।
ওকে মেয়ে টাকে আমাদের বাড়ীতে নিয়ে গেলাম আমাদের রুমের জায়গা ছিল তাই ওখানে শুইয়ে দিলাম মাকে ডাক দিলাম মা এসে জামাকাপড় চেঞ্জ করে দিল আর ডাক্তার আংকেল ওষুধ দিয়ে গেল । ঝিলিক আপু আজকে ওই মেয়ের সাথে এখানে ঘুমাবে আমি আমার চাচাতো বোনের রুমে ঘুমাবো ।

কিরে তুই এখনও ঘুমাতে যাসনি কেনো এখানে থাকলে অসুস্থ হয়ে যাবে তো ?
আরে কিছুই হবে না স্যারের পড়াগুলো শেষ না করলে সপ্তাহে শেষ পাট ক্ষেতে লুকোতে হবে । …সকালে… ঘুম ভাংলো পড়ার টেবিলে এর মানে রাতে এভাবে ঘুমিয়েছিলাম ‌ ওহো ক্ষুধা লাগছে নাস্তা খেতে হবে তখন আমি একটা সেন্টু গেঞ্জি গায়ে দিয়ে ড্রইংরুমে তখনই কে যেন চিৎকার করলো চিৎকারে আমিও ভয় পেয়ে গেলাম তখন দেখলাম ঝিলিক উঠে গেলো ।
কে চ্যাচালো হ্যা কে চ্যাচালো ? কিরে তুই চেঁচিয়েছিস নাকি ?
আপু আমি না তোমার সাথে যে শুয়ে আছে সে।

চাচাতো বোনের সাথে বিয়ে নাটক

তখন ওই মেয়েটি বলতে শুরু করল _—–
আমি কোথায় আছি আমি কোথায় আর তোমার শরীরে কোনো কাপড় নেই কেন তুমি কিছু করোনি তো আমায় ?
দেখছো আপু ভালো মানুষের ভাত নেই এই আপনি নিজেকে কি মনে করেন নায়িকা ঐশ্বর্য রায় ? কালকে আপনাকে ওই গাছ তলায় থেকে কোলে করে এই পর্যন্ত ভিজতে ভিজতে না আনলে বৃষ্টির পানি কে জ্বরে ফুলে মরে করে থাকতেন ।

তুমি আমাকে এখানে এনেছো ও সরি সরি ভুল বুঝলাম তোমাকে আমার ব্যাগটা আর ফোনটা কোথায়?
দেখো ওই পাশে তোমার বালিশের সাইডে রাখা আছে কেউ নাই নি?
এই এক মিনিট আমার জামা কাপড় চেঞ্জ করেছে কে?
আমার মা মানে মাদার ইন ইন্ডিয়া।


ও অনেক অনেক ধন্যবাদ তোমাকে বাই দা বে তোমার নামটা?
আমি শুভদীপ রায় সংক্ষেপে শুভ বলে ডাকতে পারেন আর আপনার নাম?
আমি সুস্মিতা ফ্রেন্ডরা সুতি বলে ডাকে আর বাড়িতে সুস্মিতা বলে ডাকে তুমি দুটোর মধ্যে যেকোন একটা বলতে পারো।


তখন আমার চাচাতো বোন বলে উঠলো হয়েছে হয়েছে অনেক পরিচয় হয়েছে এবার নাস্তা খেয়ে ওষুধ খেয়ে বাড়ি যাও তোমার বাড়িতে সবাই টেনশন করছে হয়তো।
ও হ্যাঁ হ্যাঁ ধন্যবাদ ! আপনাদের আমাকে মনে করিয়ে দেওয়ার জন্য।
তখন সুস্মিতা নাস্তা খেয়ে কিছুক্ষণ বসে চাচাতো বোনের সাথে গল্প করল তারপর চলে গেল মেয়েটা খারাপ না আমি বিছানা দিলাম একটা ঘুম ঘুম থেকে উঠে মা। ….. মা কি হয়েছে কিছু লাগবে আমাকে এখন এইভাবে ডাকলে কেন?

তোর সুস্মিতা আপু এসেছে তার বাবা মা কে নিয়ে তোকে দেখবে বলে।
আমি এত পপুলার হয়ে গেলাম নাকি যে সবাই আমাকে দেখতে আসছে।
আমি রেডি হয়ে বাইরে গেলাম বাইরে সুস্মিতা সরি সুতি দেখি পরীর মত সেজে বসে আছে আর তার পাশে ওর বাবা-মা আমি তাদেরকে প্রণাম জানিয়ে বসে পড়লাম ওনাদের কাছে মা আর বাবা সাইডে কি নিয়ে কথা বলছে এই দেখে আমার চাচাতো বোন চোখ লাল করে দাঁড়িয়ে আছে এক সাইডে বুঝলাম না ব্যাপারটা । কিন্তু দেখলাম আমার চাচাতো বোন ফর্সা চেহারা টমেটোর মত লাল হয়ে গেছে আমার দিকে তাকিয়ে আছে । আমিতো প্যান্টেই 12 করে দেই কিনা ভয়ে আছি আপুকে দেখে কাঞ্চনা ছবির নায়িকার কথা মনে পড়ে গেল ।


মা-বাবা সুস্মিতার মা বাবার সাথে কথা বলতে লাগল বিয়ে নিয়ে । হ্যাঁ আমার বিয়ে নিয়ে । সুস্মিতার বাবা বলছে যে উনাদের মেয়েকে নাকি কোন ছেলের প্রশংসা করে নি কোনোদিন আজকে আমার নামে এত বড় প্রশংসা করেছে সে উনি মনে করেন আমার থেকে ভালো লাইফ পার্টনার সুস্মিতার জন্য আর হতে পারে না তাই বাবা মা চাচার সাথে কথা বলে বিয়ে ফাইনাল করলো । রুমে ঢুকতেই ঝিলিক আপু আমার কলার ধরে আমাকে টেনে দেওয়ালে ধাক্কা দিল ঠস ঠসস করে কয়েকটা আমার গালে চড় বসালো ।

চাচাতো বোন যখন গ্রামের বউ নাটক

তুই খুব খুশি হয়েছিস না হিরো হয়ে মেয়েদের নিয়ে রাস্তায় দিয়ে ছুটে বেড়াস বাংলার সব মেয়েরা হিরো হয়ে বেড়াস মেয়েদের সামনে বডি বের করে নেংটা হয়ে ঘুরে বেড়াস ।
আপু কি হলো আমি বুঝলাম না তোমার রাগের কারণ কি?
তোর ওই মুখে আমাকে আপু বলবি না একদম আপু বলবে না আর কি আপু আপু করিস সারাদিন ফিডার খাই তুই নাকি ?


তুমি রাগ করতেছো কেন সেটা বল থাপ্পড় মারলো এখন বলতেছ কারনটা তো বলবে আমাকে?
কোন কারণ থাকলে উত্তর জানার অধিকার নেই তুই তোর বউয়ের কোলে মাথা রেখে ঘুমা যা এখন?
আমার মুড এমনিতেই এখন ভালো না তার ওপর ঝিলিক আপু এমন করল আমি কি করলাম আবার ঝিলিক আপু কে । সুস্মিতার বাবা-মা বাইরে বসে কথা বলছে আমার মা বাবার সাথে আমি আমার রুমে গিয়ে ঢুকতে যাবো তখনই কারো সাথে ধাক্কা খেয়ে পড়ে গেলাম এটা হচ্ছে সুতি আমি সুতির উপর আর নিচে সুতি একেবারে রোমান্টিক সিন ‌। বাট সুতি মানে সুস্মিতার এরকম চাওনি দেখে আমি লজ্জা পেলাম ।

সরি সরি তোমার লাগেনি তো আসলে আমি একটু হাঁটছিলাম।।
ও তো আমার রুমে এসেই তোমার হাটা শেষ হলো ?
না আমি জানতাম না এটা তোমার রুম ! বাট এই মেডেল গুলো কার ?
এটা যদি আমার রুম হয় তো কার মডেলগুলো কার সেটা তোমার বুঝতে অসুবিধা হবেনা মনে হয় ?
হুম বাট এই পিকটা কার ছেলে মেয়ে দুটোকে?


আমি আর ঝিলিক আপু ছোটবেলায় তোলা হয়েছিল এটা…
ও ঝিলিক আপু তাহলে তোমরা অনেক কোলোজ বেস্ট ফ্রেন্ড ও বলা যায় ।
হুম বলতে পারো কিন্তু আপুর ক্যারেক্টার আমি বুঝিনা। আমি কখনো কি করতে চাই এত বছরেও বুঝলাম না আচ্ছা বাদ দাও তুমি আমাকে পছন্দ করলে বা কিভাবে ?
পছন্দ তো পছন্দই ঘেন্নার কারণ থাকতে পারে বাট ভালবাসলে কোন কারন লাগেনা?

ও আচ্ছা ভালবাসলে কারন লাগেনা কিন্তু কিছু ভালোবাসার রুপ দেখে হয় ,কিছু ভালোবাসা অর্থ-সম্পদ দেখে আর কিছু হয় স্বার্থ হাসিল বা উন্নত জীবন পাবার আশায় ।
তোমার কয়টা গার্লফ্রেন্ড ছিল শুনি এই পর্যন্ত মনে হয় যে সেঞ্চুরি করে ফেলছো ।


চুপ আস্তে হাহাহ্যা আমি আর গার্লফ্রেন্ড ? ঝিলিক আপু শুনলে এখানে এসে পেটাবে তোমাকে আমার কাছে আপু মেয়েদের ঘেঁষতে দেয় না গতকালই একটা মেয়েকে উদোম ক্যালানি খেয়েছে আপুর কাছে । শুধু আমার গলায় আর বুকে হাত দিয়েছিল ডান্স করার সময় নোংরামি ।
তোমার ঝিলিক আপুর ক্যারেক্টার তো খুবই ইন্টারেস্টিং ।
দেখতে হবে না চাচাতো বোন টা কার ইন্টারেস্টিং না হলে যাবে কোথায়?

খালাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

খালাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প,খালাতো বোন যখন বউ,খালাতো বোন যখন হবু বউ,খালাতো বোন ,খালাতো বোন যখন গ্রামের বউ
খালাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

কিরে তুই কি বলছিলি আমার নামে কে ইন্টারেস্টিং?
আপু তুমি কি আবার থাপ্পড় থাপ্পর মারবে নাকি ? না মার খাওয়া যাবেনা ।
আপু তুমি একটু রহস্যজনক টাইপের তো সেটাই বলছিলাম আমরা ।
ও আচ্ছা এই শুভ তোকে চাচি ডাকছে যা?


আমি সেখান থেকে চলে আসলাম । আপু আমার পিছনে পিছনে চলে আসলো । আপুকে দেখলে কলেজের ছেলে মেয়েরা ভয়ে কাঁপে আপু হচ্ছে কলেজের নাম্বার ওয়ান বিউটি আর নাম্বার ওয়ান গুন্ডা । কিছুদিন পরে মানে কালকে আমার বিয়ে আজকে হঠাৎ ঝিলিক আপু আমেরিকা যাবে বলল কিসের নাকি কাজ আছে । আমি একটু অবাক হলাম । কারণ আপু এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায় গেলে আমাকে নিয়ে যায় আর আমেরিকা যাচ্ছে বাট আমাকে কিছুই বলল না ।

আপু রুমে গেলাম আপনি বেরিয়ে গেছে আপুর ব্যাগট্যাগ কিছুই নেই আমি আপুকে একটা কলমদানি কিনে দিয়েছিলাম । সেটার ভেতর কিছু একটা আছে একটা কাগজে একটা চিঠি আমি চলে যাচ্ছি বলে দুঃখ করিস না । বিয়েতে আমার দোয়া রইল আমি তোকে অন্য কারো হাত হতে দেখতে পারবো না । তাই চলে যাচ্ছি যদি কোন কোনদিন দেখা হয় আমাকে ইগনোর করিস। আসলে সেই ছোটবেলা থেকে আমি তোকে ভালোবাসি এই জন্য তোর কোন গার্লফ্রেন্ড নেই হাহা, হা হাসি পাচ্ছে তো ।


এই পর্যন্ত তোকে চিঠি দিতে আসা কত মেয়েকে যে আমি মেরেছে তার হিসেব নেই আমার কাছে আমি যা বললাম তা মাথায় না রেখে নিজের মনের মানুষকে নিয়ে সংসার করে সুখে থাক বেঁচে থাকলে দেখা হবে তো তোর ঝিলিক । কেন কেন বারবার শুধু আমার সাথে কেন? ‍?? আরে ভাই আমাকে বললেই হত যে তুই ওই সুতি খুশি সাথে কি তোমার কোন তুলনা হয় ? বাবা মা চাচা চাচি সবাইকে ডাক দিলাম আর সবাইকে সব খুলে বললাম ।

বাবা মা বলল আমার যা ইচ্ছে আমি তাই করতে পারি চাচা চাচি ও একই কথাই বলল এই বললাম তাহলে বিয়েটা ভেঙে দাও বল যে ছেলে তার চাচাতো বোনকে নিয়ে পালিয়ে গেছে এটা শুনে সবাই হাসতে লাগল । এয়ারপোর্ট থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে বসে আছি ট্র্যাফিক জ্যামে ফেঁসে আছে গাড়ি এগোচ্ছে না গাড়ি থেকে নেমে দিলাম দৌড় ফ্লাইটে এখনো আধঘণ্টা বাকি আমার দৌড় দেখে উশান বোল্ট ও আমাকে দেখলে দৌড়ানো ছেড়ে দিতো । আমি এত জোরে দৌড়াচ্ছি।

দৌড়াতে দৌড়াতে হাঁপিয়ে গেছি অনেক বাট আমাকে যে পৌঁছাতেই হবে এয়ারপোর্টে ঢুকতেই খবর পেলাম যে আমেরিকা গামী একটি প্লেন কিছুক্ষণ আগে ফ্লাইট রেট এর কারনে এয়ারপোর্টে আগুন লেগে অনেক মানুষ নিয়ে তো আর আহত হয়েছে ‌। আমার এই কথা শোনার পর বাঁ-পাশের পিকটা কেমন যেন নড়ে উঠলো । আমি লাশগুলোর ভেতরে ঝিলিক আপুকে খুজতে লাগলাম বাট পেলাম না কেউ একজন বলল যে দুটো লাশ পুড়ে গেছে নাকি ছাই হয়ে গেছে একটা মহিলা আর একটা পুরুষ ।

মামাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

মামাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প
মামাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

এটা শুনে আমি মাটিতে বসে পড়লাম চোখ মুখ অন্ধকার দেখছিলাম তখনই কোন একটা মেয়ে আমার ধরে উঠাতে গেল কেউ মেয়েটাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিল আমি চেয়ে দেখি আপু,,,,,
ও পরে গেছে তো পড়ে গেছে ছেলেমানুষ ফ্লোরে শুয়ে থাকলে কিছু হবে না ।
আমি তখন আমার চাচাতো বোনের দিকে চেয়ে আছে আপু আমার দিকে আমি সোজা দাড়িয়ে গিয়ে আপুকে জড়িয়ে ধরে নাম আপু জোরে নিঃশ্বাস ছেড়ে কেঁপে উঠল । এবার ঠিক আছে এবার আর কেউ আমাকে টাচ পড়তে আসবেনা আমার পাগলি চাচাতো বোন যখন বউ

কুত্তা আসছিস কেন যাহ এখান থেকে কালকে না তোর বিয়ে?
যার বিয়ে তার খবর নাই পাড়াপড়শির ঘুম নেই আমার বিয়ে নিয়ে তোমাকে ভাবতে হবে না আমি আজকে বিয়ে করবো বাট তোমাকে এই বলে আমার চাচাতো বোনের গালে একটা চুমু এঁকে দিলাম ।
অনেক লুচ্চু হয়ে গেছিস তো দেখছি অনেক বেড়ে গেছে তোর ।
ইয়ে ইয়েতো বাস শুরুবাত হে এখনই বিয়ে করে আমার চাচাতো বোন যখন বউ বানাবো । তোমাকে বাসায় নিয়ে যাব বাট তুমি বেঁচে গেলে কিভাবে ?


আরে আসার সময় দাদি যাতে ভুল না কি যেন ব্যাগে একটা ঢুকিয়ে দিয়েছিল আর সেটা নাকি ক্ষতিকর কেমিক্যাল । এ বলে আমাকে প্লেন থেকে নামিয়ে দিয়েছিল ফ্লালাইটের লোকেরা ।
ওই লোককে আর দাদিকে একশটা চুম্মা আমার তরফ থেকে ।
হুম চল এখন এখান থেকে বাসায় যাবি না নাকি?
আমরা এখন বাসায় যেয়ে কি করবো বিয়ে করে চলো হানিমুন টা সেরে আসি।

তো বন্ধুরা চাচাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প 2022 টি এখানে শেষ করলাম। আমাদের আজকের সুন্দর চাচাতো বোন যখন গ্রামের বউ নাটক গল্পটি আপনাদের কেমন লেগেছে অবশ্যই নিচের কমেন্ট করে জানাবেন । আর নিয়মিত এরকম বাংলা চাচাতো বোন যখন বউ রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প পেতে আমাদের সাথে থাকবে।

গল্প টি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন

Leave a Comment