এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ – প্রেমের কাহিনী গল্প 2022

আজকের আলোচনার বিষয় হচ্ছে এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ – এক প্রেমের কাহিনী গল্প 2022 . তো বন্ধুরা এই পোস্ট টি আপনারা জানতে পারবেন যে এক্স গার্লফ্রেন্ড এর সঙ্গে ব্রেকআপ হওয়ার পর সেই মেয়ে আমার মাকে পটিয়ে আমাকে না বলে বিয়ে করছে । যখন আমি বাসর রাতে যাই তখন আমি জানতে পারি যে সে আমার এক্স গার্লফ্রেন্ড । বাংলা গল্প প্রেমের কাহিনী টি শেষ পর্যন্ত দেখুন । আর এই রোমান্টিক প্রেম কাহিনী গল্পটি আপনাদের কেমন লেগেছে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন ।

প্রেমের কাহিনী গল্প

প্রেমের কাহিনী গল্প, বাংলা গল্প প্রেমের কাহিনী, রোমান্টিক প্রেম কাহিনী, বাংলা প্রেমের কাহিনী, এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ, এক্স গার্লফ্রেন্ড,
প্রেমের কাহিনী গল্প

আমাদের ভালোলাগার মাঝে এসেছিল এই মিস সুস্মিতা মনে পড়ে সেই দিন আমাদের ব্রেক-আপের কথা ।
রাহুল তুমি আমাকে কখনো পাবে না ।
তুমি কি বলছো এসব আমি তোমার কথা কিছুতেই বুঝতে পারছিনা ।
না বুঝলা না কেন তুমি কোন জব করবা না লাগবে না তোর কিছু করতে শেষে গ্রামের কোন মেয়েকে ঘরের বউ করে আনবি বাই আর কথা নেই ।


আচ্ছা জান আমার জব হয়না কিন্তু এখনতো এপ্লাই করছি হয়ে যাবে কিছুদিনের মধ্যে আমি একটা জব পেয়ে যাব ।
কে জানে আমি তো তোমার মত না বিয়ে করতে হবে না আমায় । বেকাপ আজ থেকে আমাদের । (প্রেমের কাহিনী গল্প )


আচ্ছা তুই যদি চাস তাহলে তাই হবে আর হ্যাঁ যেদিন আমি প্রতিষ্ঠিত হবো সেদিন আমায় বিয়ে তে তুই আসবি কিন্তু ।
Hey .
তাহলে বন্ধুরা এখানে আমাদের পরিচয় পর্বটি দেওয়া হোক আমার নাম রাহুল দাস আরিয়া হচ্ছে আমার গার্লফ্রেন্ড । সরি তার সাথে তো আমার ব্রেকাপ হয়ে গেল । এক্স গার্লফ্রেন্ড হয়ে গেল রিয়া ।


আর এক্স গার্লফ্রেন্ডের বাকিটা আপনারা পরে জানতে পারবেন এতদিনের ভালোলাগা সব যেন শেষ । সত্যি কথা ভাবতে ভাবতে একটু মন খারাপ । মন খারাপ হবেই না বা কেন রিয়া আর আমি পরিস্থিতির মাঝে তা বুঝতে আর বাকি নাই । ( প্রেমের কাহিনী গল্প )

এইসব ভাবতে ভাবতে হঠাৎ ফোন এলো আপনি কি রাহুল বলছেন আমি বললাম যে অপরিচিত সেই লোকটি বলল আমরা শিখা কোম্পানি থেকে বলছি আপনার জবাব হয়ে গেছে এ কথা শোনার পর আমি অনেক খুশি তাড়াতাড়ি রিয়াকে ফোন দিলাম কেউ একটা ফোন ধরে বলতে লাগলো ওকে দেখতে আসবে আমার আনন্দগুলো যেন আর নেই ।


আমার আর কি করার ছিল পরিবারকে জানালাম আমার জবের কথা তারা বলল যাক ভালই হল এখন আর তোর কোন সমস্যা নেই কালকে মেয়ে দেখতে যাবো আমি বললাম তোমাদের যা ভাল লাগে তাই করো তারপরে পরের দিন ।
অপরিচিত নাম্বারে রিয়াকে ফোন করে । (প্রেমের কাহিনী গল্প )


আসসালামু আলাইকুম আমি সেই লোকটাকে জানালাম ।
কেসে বলতে ফোনটা কেটে দিলো তারপর আমি রিয়াকে ফোন দিলাম হ্যালো রিয়া কেমন আছো খুব তাড়াতাড়ি আমার বিয়ে পরিবারের সবাই মেয়ে দেখতে গেছে আমি রাজি আর শোনো এখন আমার একটা ভালো জব আছে
ওমা তাই তাহলে আমারে বিয়ে দেখা হবে তার জায়গায় বলে কেটে দিল ।


পরদিন কোভিদ নাইনের জন্য কাউকে না বলে আমার বিয়ে সবকিছু এমনভাবে চলে যাবে বুঝিনি সব আশাভরসা তখনই শেষ হয়ে যখন কাছের মানুষগুলো একটু আড়ালে চলে যায় রিয়াকে কি তবে আমি একবারও একেবারের মত হারালাম কোন আশা নেই তবুও এটুকু বুঝলাম যে আমাকে যে চায়না তাকে কেন আমি চাইবো ।

বাংলা প্রেমের কাহিনী


এমনিভাবে আরো কিছু মনের কথা আমার মনের আড়ালে থাকলো কখনো ভাবলাম রিয়া কি আজও আমায় একটুও ভাবে না কে এই রকম ভাবনা তার শেষ অচিরে আমার জীবনের একরাশ ভালোলাগা চলে যাবে অন্য কারো মাঝে চলে যাবে ভাবনা এমনকি আমার এই মন ফোন কল আমি সেই বলে কেটে দিলো এবার বুঝলাম এটা হয়তো আমার নতুন মানুষ এখন আমি রেডী হচ্ছি এমন সময় রিয়া ফোন ।


তুই আর একটু দাঁড়া তোর খবর আছে ।
কে আপনি আপনি এখন কেন কোন বিষয়ে অধিকার চান ?
তুমি বউ হিসাবে দিবা ।
তোমাকে নিয়ে সারা জীবন এই আশায় ছিল আমার । ( প্রেমের কাহিনী গল্প )


তুমি যদি না দাও না আমি নিজে থেকে কেড়ে নেব এই অধিকার ।
তোমার কথা আমি কিছু বুঝিনা ।
কখন তোমার বিয়ে ।
এইমাত্র খবর পেলাম লকডাউনে যখনই খুলবে তখনই আজ হবে না ।


হায়রে আমার বাবুটা।
বিয়েতে আসবি কিন্তু তুই ।
আমি যাব না মানে আগে গিয়ে বাসরে থাকবো ।
তুই এখন ফাজলামি ছার । ।
তোমায় একটা কথা বলি । ( প্রেমের কাহিনী গল্প )


বললো?
এখনো কি সব আগের মত হয় না ?
সবি হতো কিন্তু ?
ছাগল একটা এখন কেন ভাবছিস কেন আমাকে নিজের বউ করে নিয়ে ভাব পরে কথা হবে বলে ফোনটা রেখে দিল ।


একটু হলেও ঠিক অযথা এখন রিয়াকে না ভেবে অন্য মানুষকে নিয়ে ভাবা উচিত । কেননা তবুও আমি যে তাকে ভালোবাসি । এই কথা ছিল আমাদের পাঁচ টা বছর আগে । তবে কীভাবে এখন ওকে ভুলে যাবো । রিয়া, রিয়া বলে শুধু রিয়া কে দেখতে পেলাম । চারপাশে সত্যিই এই জন্য আরে কার সিনেমা গুলো এমন দৃশ্য ছিল আজ বুঝলাম । ( প্রেমের কাহিনী গল্প )


সেই অচেনা মানুষকে নিয়ে ভাবলাম কেন সে কি করে কিভাবে আমাদের চলা হবে এমন সব বিষয় আর লকডাউনের দিন গোনা হত এমনিভাবে কাটলো দুইদিন ।


………দুইদিন পর আবারও ……
কবে যে লকডাউন শেষ হবে।
লকডাউন শেষ হয় তোর কি হবে।
জানিস না আমার বিয়ে আসলে বলা তো হয় না তো কে জানবে বা কি করে তাই না। ( প্রেমের কাহিনী গল্প )


তোর যা ইচ্ছা তুই কর
আমাদের ব্রেকআপ কে ঘটাল ? হুম সব আমার ।
একদিন দেখা করি ।
কোথায় ?
আমাদের বাসার সামনে?

বাংলা গল্প প্রেমের কাহিনী

প্রেমের গল্প, রোমান্টিক প্রেমের গল্প, মিষ্টি প্রেমের গল্প, প্রথম প্রেমের গল্প, বাংলা প্রেমের গল্প, দুষ্টু মিষ্টি প্রেমের গল্প, দুষ্টু মিষ্টি ভালোবাসার গল্প, নতুন প্রেমের গল্প, প্রেমের কাহিনী গল্প বাংলা গল্প প্রেমের কাহিনী, মিষ্টি প্রেমের সাইরি,
প্রেমের কাহিনী গল্প


এখন যে লকডাউন চলছে কি করব?
তুমি ওষুধ নেওয়ার বাহানা নিয়ে আসবে ।
ওকে রিয়া বলা ঠিকানা নিয়ে হাজির আমি এসেই বলল ।
শোন তোর বিয়েতে মনের মানুষকেই পাবি ।


মনের আর মানুষ ।
আমি তাকে কোনদিন দেখলাম না আর সেরকম কথা হয়নি তার সাথে শুধু ফোন করে আর বলে “আমি” আর ফোনটা কেটে দেয় । ( বাংলা গল্প প্রেমের কাহিনী )

একটু হেসে বললো ওহ কি কথা ।
তুই আমার এক্স । কি ভালো কথা বলবে তা নয় পড়ে আছে একটা কথা নেই ।
Oh hello I am not your ex I am only .
Ki .


তোর মাথা ।
তোর মনের মানুষের কি খবর ।
ভালো এই রোদের মাঝে আমাদের দেখা হয় ।
লকডাউন তবুও । ( বাংলা গল্প প্রেমের কাহিনী )


তুই এখানে কিভাবে আসলি ।
জানিস তুই ।
তো ওইভাবে ।
আচ্ছা
তুমি ভালোবাসো আমায় ।
আগে বাসতাম ।
এখন ,
সারা জীবন বাসবো নাহ হয় ।

আচ্ছা ভালো থাকবে শরীরের দিকে একটু দেখ কেমন অবস্থা । চুলগুলো তো পুরোনো অগোছালো ।
তুই চলে যাও ।
সরি বাই ।
এতদিন কেউ আমায় বলে নেই যে নিজের যত্ন নিতে আজ বললো একজন যে মানুষটাকে আমি আজও ভালোবেসে একটু কাছে চাই একটু বলতে চাই আমি তোমারি ছিলাম আছি থাকবো । সারাটা জীবন এতদিনে যা বুঝলাম তাহলে ব্রেকআপ কখনো ভালোবাসার মাঝে নেই যা হয় তা হলো শুধু পরিস্থিতির মাঝে । ( বাংলা গল্প প্রেমের কাহিনী )


আমার চারদিকে কেমন যেন একটা আঁধার নেমে এলো বুকে উঠার আগেই সব শেষ এমন একটা চিন্তা আসলো আমাদের কি আজ সব শেষ হবে ? কিছুই কি আর থাকবে না পাঁচটা বছর কাকে তাহলে বাবু সোনা জান বললাম আচ্ছা রিয়া কি আজও আমার না কি নেই ? বলতে বলতে লকডাউন শেষ হতে লাগল এমন একটা সময়ে একদিকে যেমন রিয়ার টেনশন তেমনি অন্যদিকে আবার বিয়ের টেনশন ॥

রোমান্টিক প্রেমের কাহিনী

হঠাৎ মা আমার রুমে এসে বলল লকডাউন তো শেষ এখন ভাবছি বাবা তোর বিয়েটা দিয়ে দেব আমি কিছু না বুঝে মাথা নাড়ালাম তারপর একটু রিয়াকে ফোন দিলাম।
বল কি বলবি । ।
দেখ কালকে তো আমার বিয়ে তুই কি আসবি ।


যাবনা ।
কেন আসবি না তুই ।
থাকতে তো চেয়েছিলাম সারাটা জীবন ।
একটা কথা বলি তুই কি আজও আমাকে ভালবাসিস । ( রোমান্টিক প্রেমের কাহিনী )


যদি বলি বাসে তবে আর কি হবে বল ।
হু ! হত যদি তুই বেকাপ না করতি ।
আমিতো তোর সাথে ব্রেকআপ করতে চাইনি।
তোর কি মনে হয় আমি কিছু বুঝিনা।


ভালো বুঝিস তো।
এই বলে আমি ফোনটা কেটে দিলাম । এখন যদিও বা আমি চাই রিয়াকে কিন্তু হবেনা । তা কখনো কারনটা হল কালকে ওর বিয়ে কি নিয়মিত আমাদের একই দিনে দুই প্রেমিক প্রেমিকার বিয়ে এটা হল আমাদের নিয়তি । হয়তো বিধাতা আমাদের ভালবাসাকে মেনে নেয়নি । অনেক বছরের আমাদের এই রিলেশন সবকিছু একেবারে আর থাকবে না এমনটা ভাবে থেকে যাবে ইতিহাসে । ( রোমান্টিক প্রেমের কাহিনী )

পরদিন সকালে এখন সবকিছু হয়ে যাবে আমার বিয়ে তাই সব বুঝে আমি রেডি হলাম একটা ঝকঝকে প্রাইভেটকারে আমি উঠলাম । বিয়ে বাড়িতে আমি কন্যাকে এখন দেখা হলো না শেষ পর্যন্ত কবুল কবুল বলে দিয়ে কাজ শেষ হলো ।


কনে , গাড়িতে কি খবর তোমার ?
জি আমি ভাবলাম এতটা সময় কোন কথা না বলে এখন একটু পরিচিতি কন্ঠে এমন কথা পুরাই ।
অবাক কান্ড তো আমি কনে : বললাম কি খবর বিয়ে করতে এলে যে আমায় ।
কে তুমি ঠিক তখনই রাস্তার লাইট এর ফলে দেখে ওটা ওটা আর কেউ নাই আমার এক্স রিয়া । তখন তাকে বললাম তুমি কিভাবে এখানে । ( রোমান্টিক প্রেমের কাহিনী )


এই ভাবেই মশাই ।
আমি দুই হাতে ঐ সেই পরিচিত চোখে চোখ দিতেই গাড়ির ড্রাইভার একটু কিছু বুঝে ব্রেক করল ।
আমি তোমাকে এত তাড়াতাড়ি পাবো আমি ভাবি নি ।
কিভাবে হল এমন ‌,


আমি তোমার মায়ের সাথে দেখা করি বলি আমাদের সব কথা মা আমার মা কে সব বলে তারা সবকিছু ম্যানেজ করে একটা শর্ত তোমার জব আর তাও হলো আর কি লাগে হয়ে লাগে ।
আজ কি হবে বুঝেছ রিয়া তুমি । আচ্ছা কি হল এটা ? ( রোমান্টিক প্রেমের কাহিনী )


বুঝলানা আচ্ছা গাড়ির ব্রেক দিলো মামাকে আর রিয়াকে মিষ্টি খেলে গাড়ি থেকে বের করে ঘরে নিল ।
আজ সত্যিই আমার খুশির দিন কারণ প্রিয় মানুষকে পাওয়ার আনন্দ অনেক অনেক বেশি কারণটা রিয়া আজ আমার অনেক কাছের মানুষ যাকে নিয়ে কাটাবো আমার জীবনটা । বাসর রাতের এক ঘরে আমি আগেও একই মনের মাঝে আমরা একে অপরের পাশে হঠাৎ তখন সে বলল ।

এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ

প্রেমের কাহিনী গল্প, বাংলা গল্প প্রেমের কাহিনী, রোমান্টিক প্রেম কাহিনী, বাংলা প্রেমের কাহিনী, এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ, এক্স গার্লফ্রেন্ড,
এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ


দেখো আজ কিন্তু তুমি আমায় ছোঁবে না ।
কেন ।
কেন আবার বুঝে নাও ।
তুমি বুঝিয়ে দাও ।
আমি পারবো না ।


কেন গো?
আচ্ছা তুমি যদি আমাকে ভালবাসতে তবে কেন এমন টা করলে ?
কেমনটা ?
অন্য কাউকে ভালবেসে বিয়ে ।
শোনো তুমি তো বললা না আমায় যে আর এটা ফান ছিল । ( এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ )


এটা ফান না এখন ফান হবে ।
দেখো তুমি এমন করো না।
আচ্ছা তবে করবো না।
আচ্ছা একটু তোমায় কোলে মাথা দেবো ।


ঠিক আছে দাও ।
জানো তুমি তোমাকে না পেলে এই মন আমার ডিপ্রেশনে থাকতো তুমি কেন কোনো কথা বলোনি । আচ্ছা তোমায় একটা কবিতা বলে শুনাবে ?
আচ্ছা বল !
তুমি একটু দাড়াও গুগল-এ সার্চ দি সেই তুমি রাকিব হাসান । ( এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ )


কি ব্যাপার বলতো ?
কি ।
তোমায় নিয়ে লেখা যে তাই?
তাই না।
রিয়া তোমায় একটা কথা বলি সারা জীবন তুমি আমার হবে আমাকে শুধু ভালোবাসবে আমাকে সারা জীবন জড়িয়ে থাকবে তোমার মাঝে কথা দাও ।

তুমি আমায় শুধু আমারই থাকবে আমার পরিবারকে সারাজীবন ভালবাসবে ।
অবশ্য তুমি আমার হবে সারাটা জীবনের জন্য ।
আচ্ছা তো আমার সোনাটা কিছু কি বলবে না আমার সাথে না কিছু শুধু গল্পে কাটাবে । ( এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ )


আর জমে থাকা হাজারো কথা বলা হবে শুধু ।
যা ইচ্ছাচ্ছ আমার বউ ।
জী আমার লাইফ হাজবেন্ড ।
তবে এখন কি করা যায় বলোতো ?


চলো তবে লুডু খেলবো ।
আমার ফোন আছে কি কালার নেবা একসাথে বলবো ওকে !
লাল ।
আমারও লাল জানুয়ারি আর এই জন্য হয়তো আমাদের এমনটা কঠিন ভাবে একটা রিলেশানে পরিণত হল । ( এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ )


ঠিক বলেছ ঠিক তাই আমাদের ভালোলাগা কাজ ভালোবাসা হয়ে গেল । আচ্ছা একটা কথা বলতো আমার আগে কেউ তোমার জীবনে ছিল কি ?
ছিল ক্লাস নাইনে ওই মেয়েটা আমায় প্রপোজ করেছিল আমি না করি কিন্তু পরে আমি বলি ওই আবার না করে কারণ ও ফুফাতো ভাইয়ের সাথে রিলেশন ছিল তারপরে আর কোন কথা নেই একেবারে ভুলে যায় তাকে ।


কি নাম ‍?
তুমি বাদ দাও না ওইসব আজকে শুধু কাছে আশা আর ভালোবাসা ?
তো তুমি খেলবা না লুড্ডু ।
না আজকে শুধু পাশা খেলবো বুঝলা ।
আমি কিছু বুঝিনা। ( এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ)


তুমি একটা জব খোঁজ করো রিয়া ওকে ঠিক তাই হয়েছে সেই চোখ যে চোখের মিলনে এতদিন ছিলাম আমি ঠিকঠাক ওই দুটি কোমল ঠোঁট যার মাঝে আমি হারাই তোমার হাতে আমার হাত কি একটা অজানা অনুভূতি আমাদের যেন তোমায় আমি চিনি হাজার বছর ধরে আমার আঁধারে তুলি মনের প্রেম গাথা তুমি আমার মনেরি প্রেম ।


এমনি হয়ে চলতে থাকে আমাদের স্বপ্নের বাসর রাত । অবশেষে আমাদের প্রেম আজ সফল পরের দিন সকালে রিয়ার ঘুম ভাঙার জন্য আগ্রহ আমি কখন উঠবে সে ।
আমি ওটাই আলতো ভাবে জড়িয়ে ধরে বললাম এখনি কেন সকাল হলো,
কেন সকাল তো হবেই কারণ টা হল সময় কারো জন্য নয় ।


জি মহারানী এভাবেই এ গল্প চলতে থাকে ভুলে যাওয়া গার্লফ্রেন্ড হল শেষে এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ

তো বন্ধুরা এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ – এক প্রেমের কাহিনী গল্প টি এখানে শেষ করলাম। আমাদের আজকের বাংলা গল্প প্রেমের কাহিনী টি আপনাদের কেমন লেগেছে অবশ্যই নিচের কমেন্ট করে জানাবেন । আর নিয়মিত এরকম এক্স গার্লফ্রেন্ড যখন বউ পেতে আমাদের সাথে থাকবে।

গল্প টি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন

Leave a Comment