বাসর রাতে রোমান্টিক গল্প | Ek New Basor rater romanṭik golpo 2022

হ্যালো বন্ধুরা একটা সুন্দর বাসর রাতে রোমান্টিক গল্প দুষ্টু মিষ্টি ভালোবাসা প্রেমের কাহিনী রোমান্টিক মিলনের গল্প শোনাতে চাই । আমি একটি বাজি রেখে বিয়ে করার প্রথম রাতের অভিজ্ঞতা বা রোমান্টিক ফুলশয্যার খুন শুটি ও ভালোবাসার গল্প শুনাতে চাই । তো শুনতে থাকুন । বাসর রাতের রোমান্টিক গল্প বা  বাসর রাতের রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প শুনতে থাকুন ৷ 2020 সালে নতুন গল্প ৷

     বাসর রাতের রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

 

#আমার গল্প

বাসর রাতের রোমান্টিক গল্প,বাসর রাতের রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প,
বাসর রাতের রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

রাত ১২ টা…

পল্লবীর ঘরে বাসর সাজানো হয়েছে সকলের । তারপর পল্লবী খাটের উপর বসে আছে। রাজেশ আসলো রুমে। কিন্তু রাজেশ বেচারার মন খুব খারাপ।নিরুপমা যদিও বাজি জেতার জন্য রাজেশ কে বিয়ে করেছে কিন্তু এমনিতে রাজেশ কে তার খারাপ লাগে না।দেখতে শুনতে ভাল ব্রিলিয়ান্ট, হ্যান্ডসাম, অনেক মেয়ের ক্রাশ, স্বামী হিসেবে এমন ছেলেই চায় অনেক মেয়েরা।তাই পল্লবী মনে মনে রাজেশ কে স্বামী হিসেবে মেনে নিয়েছে। রাজেশ পল্লবীর রুমের বারান্দায় গিয়ে বসলো মন খারাপ করে। .

হঠাত পল্লবীর মনে হল গাইয়া টাকে বলা দরকার যে সে অন্য একটা ছেলে কে বিয়ে করেছে & কয়েক দিন এর মধ্যেই হানিমুনে যাবে। তাই হানিমুনে যাওয়ার টাকা টা রেডি রাখো। পল্লবী ফোন দিতেই গাইয়া টা ফোন রিসিভ করলো। পল্লবী তো এক নিশ্বাসে সব বলে ফেললো।

.পল্লবী:আমি কিন্তু পরের সপ্তাহে হানিমুনে যাবো।
ছেলেটি: সেটা তো হবে না। মুই তো পরের সপ্তাতে হানিমুন যাবার পাইম না।মোর ফাস্ট সেমিস্টার এর ফাইনাল পরীক্ষা আছে।

পল্লবী: আপনি কেন যাবেন? আপনি বাজির টাকা দিবেন আমি আমার স্বামী কে নিয়ে হানিমুনে যাবো।
ছেলেটি:টাকা না হয় দিলাম কিন্তু স্বামীকে ছাড়া হানিমুনে কিভাবে যাবে [ ফোন কানে ধরে বলতে বলতে রাজেশ রুমে আসলো।]

বাসর রাতে রোমান্টিক গল্প

বাসর রাতের রোমান্টিক গল্প,বাসর রাতের রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প,

এসে পল্লবীর সামনে বসে বললো স্বামী কে ছাড়া কি হানিমুনে যাওয়া যায়? পল্লবী তো অবাক? আমি এতক্ষন কার সাথে কথা বলছিলাম। আর এতক্ষন তো গাইয়া টা আঞ্চলিক ভাষাতেই কথা বলছিল আর এখন এত সুন্দর করে শুদ্ধ ভাষায় কথা বলছে কি করে? তখন দেখলো কথা গুলো মোবাইল থেকে নয় সামনে থেকে আসছে।তখন রাজেশ বললো চুল ভেজা আছে?? ভেজা চুল দিয়ে পা মুছানোর কথা ছিল!!!!!!!!.. তুমি বাজি হেরে গেছো

পল্লবী হা করে অবাক হয়ে বললো, রাজেশ তার মানে তুমি মার  বান্ধবীর ছেলে??

রাজেশ বললো, বলেছিলাম আমাকে বিয়ে করার জন্য পাগল হবা, সুইসাইড ও করতে চাইবা… করেছো। বলেছিলাম তোমাকেই বিয়ে করবো…করেছি। এখন থেকে প্রতিদিন ভেজা চুল দিয়ে সকাল আর রাতে পা মুছে দিবা। পল্লবী বললো সব করবো আগে বলো এতসব করলে কি করে?

রাজেশ বললো, যেদিন তোমার মা তোমার সম্পর্কে আমাকে বলে সেদিনই বুঝেছিলাম তুমি কক্ষনো কোথাও হারো নি। তাই এমন জেদি আর বদমেজাজি হয়েছো। আমি চাইলে তোমার সাথে মিট করে কথা বলেই বিয়ে টা করতে পারতাম। কিন্তু সেটা করলে তোমার জেদি আর বদমেজাজি  অভ্যাস টা থেকেই যেত।তাই সেটা না করে তোমার মার কাছ থেকে তোমার নাম্বার টা নিয়ে ফোন করলাম তোমাকে ।আর প্লান করলাম কিভাবে তোমাকে ঠিক করা যায় জব্দ করা যায় । আর তুমি যেদিন তোমার মার কাছে আমার নাম্বার নিছো তখনি শ্বাশুড়ি মা আমাকে বলে দিছে।আর আমিও তোমাকে খেপিয়ে দিয়ে বিয়ে না করার বাজি করালাম। কারন আমি জানতাম
বাজির কথা বললেই তুমি রাজি হবে, তারপর ভার্সিটি তে এডমিশন। প্লান মতই সব হল আর তুমি বিয়েও করলে।

বাসর রাতের রোমান্টিক গল্প,বাসর রাতের রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প,

বাসর রাতে রোমান্টিক গল্প

.তার মানে তুমি সব গুলো বাজি জিতলা???? পল্লবী বললো। আমাকে কি সত্যি সত্যি তোমার পা ভেজা চুল দিয়ে মুছে দিতে হবে??. রাজেশ বললো না হবে না।তুমি সব সময় আমার বুকে থাকবা।আর হ্যা আরো একটা বাজি জিতেছি।সেটা হলো আমার শশুর বাবার  কাছে। সেটা হল আমি যদি ওনার মেয়ে কে ওনার মেয়ের ইচ্ছাতেই বিয়ে করতে পারি তাহলে হানিমুন এর বাজেট উনি দিবেন সেটা পল্লবী যেখানে যেতে চাইবে……

.তো পল্লবী বাজিতে নাকি সব সময় জিতে যাও কখনো হারাতে পারে নি কেউ। এখন তো দেখছি একটা বাজিও জিততে পারলে না।

পল্লবী:কে বললো আমি বাজি জিতি নি…

রাজেশ:কোথায় জিতলা বাজি?

.পল্লবী: আমি বাজিতে জিতেনিলাম সেই মানুষ টাকে যার কাছে হাজার বার বাজিতে হেরে যেতেও শান্তি আছে।সেই মানুষ টাই
আমার সব থেকে বড় বাজি জেতা।…..
আর সেটা আমার গাইয়া খ্যাত রাজেশ…..

বাসর রাতের গল্প

.রাজেশ: তাই নাকি?? তাহলে চল এখন বিছানায় তোমাকে হারিয়ে দিয়ে জিতিয়ে দেই আবার।

.পল্লবী: ইশ রে শখ কত… আগে ভাল করে প্রপোজ কর…. তারপর ভাববো……কি করা যায়

রাজেশ: বউকে বাসর রাতে প্রপোজ করা লাগবে? পারবো না..

.পল্লবী: পারতেই হবে… জোর করে প্রপোজ করাবো। নয়লে

রাজেশ: নয়লে কি । পারবা না আমি প্রপোজ করাতে বাজি কর….

পল্লবী: ওকে বাজি …….. বলো কি বলবে না?

.রাজেশ: I LOVE YOU…

পল্লবী: হেরে গেছে হেরে গেছে… প্রপোজ করেছো…

.

রাজেশ : না না করি নি এমনি বলছি ওটা…..

এভাবেই চলতেই থাকবে বাজি….. একজন হেরেও জিতে যাবে আর একজন অন্য জন কে জিতিয়ে দিয়ে জিতে যাবে সেই মানুষ টাকে যার মুখে জিতের হাসিটা পৃথিবীর সব কিছুর থেকেও বেশি মুল্যবান…..

.

এভাবেই চলতেই থাকবে বাজি….. একজন হেরেও জিতে যাবে আর একজন অন্য জন কে জিতিয়ে দিয়ে জিতে যাবে সেই মানুষ টাকে যার মুখে জিতের হাসিটা পৃথিবীর সব কিছুর থেকেও বেশি মুল্যবান…..

চলুক তাদের খুনশুটির ভালবাসা গল্প  …..

এই ভাবে তাদের সারারাত ধরে বাসর রাতে রোমান্টিক গল্প চলতেই থাকে ।

গল্প টি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন

Leave a Comment