রোমান্টিক ভালোবাসার ছোট গল্প

রোমান্টিক ভালোবাসার ছোট গল্প

 প্রতিদিন দুষ্টু মিষ্টি ভালোবাসার গল্প গুলি পেতে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে ফলো করুন আর সঙ্গে থাকুন। আজকে গল্প টি হচ্ছে রোমান্টিক ভালোবাসার ছোট গল্প পুরোটা পড়তে থাকুন আর কেমন হয়েছে জানাবেন । 

রোমান্টিক ভালোবাসার ছোট গল্প

রোমান্টিক ভালোবাসার ছোট গল্প

আমার পিচ্চি বউটা আমার থেকে কঠিন চোখে তাকিয়ে আছে ।আমি তাকে বললাম….

এই যে ম্যাডাম ঘটনাটা কি আইটেম বোম হয়ে গেছো কেন ভারত পাকিস্তানের লোকজন তো একে অপরের দিকে এমন ভাবে তাকায় না !ব্যাপারটা কি তোমার?

সারাদিনে তোমার কাজটা কি শুনি এতক্ষণ কোথায় ছিলে!

করোনার কারণে অফিস যাওয়া সেই গন্ধ আমারও কোন কাজকর্ম নাই বাসায় থেকে বের হতে পারছি না আমার কাজ হচ্ছে খাওয়া আর ঘুম, আবার ঘুম আর খাওয়া!

রোমান্টিক ভালোবাসার ছোট গল্প

সারাদিনে তো আমাকে একটু সাহায্য করতে পারেন, মশাই সংসারটা তো আমার একার নয় ‌। তোমারও তো কিছু দায়িত্ব আছে তাই না?

এই যে ম্যাডাম আপনাকে কে বলেছে যে আমি দায়িত্ব পালন করিনা এই যে তুমি ইউটিউব দেখে দেখে কচুর শাক এর হালুয়া , শুঁটকির শুপ, মরিচ দিয়ে মিষ্টি,শাশুড়ির পোলায় খায়, সতীনের নাতিন খায় জাতীয় অখাদ্য-কুখাদ্য তৈরি করো, এগুলিকে কে শেষ করে? আমি তো এই মহান দায়িত্ব মনে করে খাই আমি না খেলে তো……

থাক সারাদিন কোন কাজ তো করো না রাতে শোয়ার সময় মশারি টাঙ্গাতে পারো না? কাল থেকে আমি আর মশারি টাঙিয়ে দেবো না তুমি নিজের টা নিয়ে নেবে!

আমি একা আলাদা ঘুমায় বউ বাচ্চাদের নিয়ে অন্য খাটে শোয় । আমি বললাম…

অসম্ভব এটা কখনোই হবে না আমি মশারি টাঙ্গাতে পারবোনা প্রয়োজনে আমাকে ঘরের ময়লা, হাড়ি-পাতিল ধুতে বল, ঘরদোর মুছতে বল,তরকারি কেটে দিতে বলে, সব করে দিব ।‌।

দেখা যাবে মহাশয় কাল থেকে তোমাকে মশারি টাঙাতে হবে । আমি আর পারব না । সেটা আমি বলে দিলাম ।

ঘরে বসে আছি বলে সুযোগ নিচ্ছো। অন্য কোনদিন তো বল নাই ! কাল থেকে তোমার সব কাপড়চোপড় আমি দিয়ে দেবো । ওইজন্যে শহীদ হয়ে যাব জেলে যাবো তবুও মশারি টাঙ্গাতে পারবোনা।

তুমি যতই থানাপাড়ায় করো কাল তোমাকে দিয়ে আমি মশারি টাঙিয়ে ছাড়বো।

হে কাভি নেহি সাক্তা হে !

দেখা যাবে…..

রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প কাহিনী

বলেই বউ মশারি টাঙিয়ে রাগ করে চলে গেল ।কেউ যদি আমাকে প্রশ্ন করে পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন কাজ থাকে তাহলে আমি বলব রাতে শোয়ার সময় মশারী টাঙ্গানো। এটা আমার কাছে অসম্ভব বিরক্তিকর কাজ বলে মনে হয় ।কোনদিন যদি বউয়ের সাথে আমার ঝগড়া হয় তাহলে আমি নিশ্চয়ই এই মশারী টাঙ্গানো নিয়ে হবে।

কতদিন হয়ে গেল বউ বাসায় নাই বাপের বাড়ী গেছে মশারি না টানিয়ে শুয়ে আছি। সাদা দাঁত মুসলমানের কাছে ভনভন করছে কামড় দিয়ে পাছা খুলে দিয়েছে তবুও মশারি টাঙ্গাতে যায়নি অসহ্য হলেও পুলিশ পেটে ফ্যান চালিয়ে লুঙ্গি গায়ে দিয়ে শুয়ে থেকেছি।

পরের দিন সকালে ঘুম থেকে উঠলাম সকাল দশটায়। রোজার দিন লকডাউন এর কারণে কাম কাজ তো বন্ধ । কিছুক্ষন টিভি দেখলাম তারপর ধুত্তেরি ছাই বলে উঠলাম টিভি দেখতেও ভালো লাগে না টিভিতে সেই একই খবর, শুধু করোনা করোনা ।  রান্নাঘরে গেলাম দেখি বউ তরকারি কুটছিল আমি বললাম….

আমি বললাম কি করছ আমার লক্ষ্মীটি।

সে আমাকে বলল এইত আমার এক্স-বয়ফ্রেন্ডের সাথে একটু গল্পগুজব করেছিলাম আমার হাতে তো অফুরন্ত সময় টাইম পাস করতে হবে না।

আমি তাকে জিজ্ঞেস করলাম আজ যেন কি বার ।

সে রেগে গিয়ে বলল সোমবার।

আমিও বললাম আচ্ছা আজকে সোমবার তারপরের দিন কি বার?

শুক্রবার

রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

আচ্ছা সোমবারের পরেরদিন হচ্ছে শুক্রবার ভালো আজকে কি তরকারি করছো।

ডাল না দুধ?দুধ কি তরকারি?

এই যে মশাই ঘটনাটা কি উল্টাপাল্টা কথা বলছে কেন?

কি জানি বউ থাকতে থাকতে বোধহয় আমার মাথাটা আলিয়া গেছে কি বলতে কি বলি ।  খাওয়া আর ঘুম ছাড়া তো কোন কাজ নাই আগে কাজ করতে করতে ভাবতাম এক সপ্তাহের মধ্যে যদি কাজ বাদ দিয়ে বিশ্রাম নিতে পারতাম । এখন ভাবি ধুর শালা কাজ করতে না পারলে তো মরেই যাবো কবে যে কাজে ফিরতে পারবো।

কাজ করো মন ভালো হয়ে যাবে ।এই নাও আমাকে কতগুলো পেঁয়াজ ছিলে দাও।

আমি উপরে প্রিয়া খেলতে বসে গেলাম কখনো এই কাজ করেনি তাই চোখ দিয়ে দরদর করে পানি ঝরতে লাগল পিয়াজের ঝাল অনেক করা তাই দেখে আমার ছোট মেয়ে এসে বলল বাবা….

তুমি কাঁদছো কেন তোমার কি হয়েছে ?আম্মু কি তোমাকে বকেছে?

আমি বললাম অতি সুখে কাঁদছিলে মা কেউ কাজ করে ক্লান্ত হয়ে কষ্টে কাঁদে আমি কাজ করতে না পেরে কাঁদছি অতি সব ভালো নয় রে মা!

বিকেলে বাড়ি তৈরি করছে তুমি কাছে গিয়ে কিছুক্ষণ ঝিম মেরে বসে রইলাম সময় কাটছে না। আমি বললাম….

কি বানাচ্ছ বউ!

পিয়াজু আর বেগুনি।

পিয়াজু আর বেগুনি কি দিয়ে বানায়?

তুমি জাননা পিয়াজু আর বেগুনি কি দিয়ে বানায় কিভাবে বানায় বেগুন দিয়ে আর বেগুনি বানায় পিয়াজ দিয়ে ?এবার হয়েছে?

আহা রাগ করছ কেন আমার লক্ষী বউ দশটা-পাঁচটা নাও তুমি আমার একমাত্র বউ !তোমার কাছে আমার রান্নাবান্না শিখতে হবে না । আচ্ছা বউ বেগুন দিয়ে বানানো বেগুনি।  তাহলে পেঁপে দিয়ে বানালে সেটা হবে পেপেনি ? কুমড়ো দিয়ে বানালে হবে কুমড়ানী?

দেখো আমার সাথে রসিকতা করার চেষ্টা করবে না আমি তোমার বউ । গার্লফ্রেন্ড না!

অবশ্যই তোমার সাথে রসিকতা করতে পারি । তুমি আমার বউ দরজাল শাশুড়ি না।

এই বলে আমি চলে আসতে গেলাম, বউ বলল…

কোথায় যাচ্ছ তুমি।

একটু বাজারের দিকে যায় কয়টা ডাব কিনে নিয়ে আসি ইফতারের ডাব প্রতিদিন খেতে হবে? ডাব না খেলে কি হয়? ডাব না খেলে আবার নারকেল হয় ।

কি বললে তুমি?

স্বামী স্ত্রীর রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

কিছু না

রাতে খাওয়া দাওয়া করে এগারোটা বেজে গেল আমার মাথায় আছে আজ আমাকে বউ মশারি টাঙ্গাতে বলবে। পুরুষ মানুষ হয়ে সামান্য বউয়ের কাছে হেরে যাব তা কি করে হয় খাওয়ার পর বউকে বললাম….

এইযে বউ মনে হচ্ছে মাথা ঘুরাচ্ছে পেট গুলাচ্ছে বমি-টমি হয়ে যাবে কিনা কে জানে!

নো ধানাই-পানাই মশারি তোমাকে টাঙাতে হবে।

আরে ধুর তোমার মশারি তোমার মশারির কথাকে ভাবছে মনে হচ্ছে পেশার বেড়ে গেছে ঘাড় ব্যথা করছে মাথায় পানি ঢালতে হবে!

বলো কি তুমি এক কাজ করো বিছানায় শুয়ে পড়ো আমি মাথায় পানি ঢেলে দিচ্ছি।

আমিতো করে বিছানায় গিয়ে শুয়ে পরলাম বউ এক বালতি মগ জল এনে মাথায় মাথাটা তার কোলে নিয়ে পানি ঢালতে লাগল কিছুক্ষন মাথায় পানি ঢেলে গামছা দিয়ে মাথা মুছিয়ে সুন্দর করে শুইয়ে দিল। আমি মনে মনে হাসতে লাগলাম । অবশ্য দুই একবার ওহ ,আহ শব্দ করতে হয়েছে ।বউ মশারি টাঙ্গাতে টাঙ্গাতে বলল….

তুমি একটা কড়া করে ঘুম দাও আমি কার মাসাজ করে দিই তাহলে দেখবে তোমার ব্যথা কমে যাবে।

আমি মনে মনে হাসতে হাসতে বললাম….

এই না হলে বউ।

এটা দেখে আমার বউ সব বুঝতে পেরেগেছে। 

তখন সে আমাকে ধড়তে এলো । আমি লুঙ্গি তে পা আটকে পড়তে লাগলাম তখন আমার বউ আমার হাতটা ধরতে গিয়ে দুজনে খাটে । তারপর ইতিহাস ….

তো আমাদের আজকের রোমান্টিক ভালোবাসার ছোট গল্প টি আপনাদের কেমন লেগেছে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন আর নেক্সট ভিডিওর জন্য অবশ্যই নিচের লিংকে ক্লিক করুন। 

আশা করি গল্পটি আপনাদের ভালো লেগেছে। 

গল্প টি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন

Leave a Comment